কবিতা

কিংবদন্তী

বাউল ঘরামি

শৃঙ্খল-গ্লানির আখ্যান শ্রবণ নিরতিশয়
গল্পগুজব আর ইতিহাসে-
একপেশে-দোপেশে-তেপেশে,
স্বাধীনতাও হলো দর্শন, অর্ধশতাব্দী পেরিয়ে
গোবর আর হালুয়ার ফারাক গোলমেলে;
আমজনতা একটিও আম পায় না ভাগে
সে কেবল দিওয়ান-ই-খাস এ।
গণসাম্যবাদ, শ্রেণী সংগ্রাম আর বিপ্লব পরাস্ত
ভুল আর গরলে বৃহদাকার অশ্বডিম্ব,
ঐশী বিধান? সে তো আজন্ম কেতাববদ্ধ
‘গন্ধম ফল’- কেবলই দুর্গম আর বিমূর্ত
পঁচা-দুর্গন্ধ ছড়ায় কারও কারও কর্মকাণ্ড।

এসো, গল্প করি মানবের, বিকল্প:
কোলে বসে নানাবুজির পুঁথিপাঠ, কেস্তা
কিংবা পাড়ার ‘রূপবান’ পালা।
শৈশবে দেখা সেই পূর্ণ-উলঙ্গ কিশোরী
জঠরজ্বালায় শরমবোধ বাষ্পীভূত –
‘আর পাত্তিচি ন্যা, একমুট বাত দ্যাবা?’
বাস্তুহারা ‘হালিম’-‘রাহাতোন’-এর আহাজারি-
‘দাদাজান গো, ইট্টু জাগা দ্যান, মাতাডা গুঁজি।’
সেই কালো মেয়েটির কথা মনে পড়ে
দক্ষিণপাড়ার লস্কর বাড়ির?
ফুঁসলিয়ে মাতব্বর যার উদরে উর্বর শুক্রাণু জমা রাখে
সেই থেকে তারা একঘরে!

হয়েছে জমা কর্মভার বেশুমার
এসো, বন্ধু, গল্প শুনি তার, তোমার, আমার
একটু হলেও পাপের বোঝা হ্রাসে যদি
কেবল সেটুকুই সত্যি, আমার ইতিহাস, কিংবদন্তী।

(৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১)

আরও দেখুন

এ বিষয়ের আরও সংবাদ

আরো দেখুন

Close
Close