নাগরিক স্বাধীনতার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ : প্রধান বিচারপতি

 

সুনির্দিষ্ট মামলা ছাড়া রাজনৈতিক নেতাদের গ্রেফতার-হয়রানি না করা সংক্রান্ত্র মামলায় নাগরিক স্বাধীনতার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ, তাই মামলাটি তাড়াতাড়ি শুনানি করতে হবে মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। তবে মামলাটি শুনানি না করে আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর পরবর্তী দিন ঠিক করেন আদালত।

সুনির্দিষ্ট মামলা ছাড়া বিএনপি ও জামায়াতের ছয় নেতাকে গ্রেফতার ও হয়রানি না করতে হাইকোর্টের দেয়া আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিলের শুনানিতে বৃহস্পতিবার অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সময় প্রার্থনা করলে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন এই মন্তব্য করেন।

বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদেস্যর আপিল বিভাগের বেঞ্চে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম শুনানির জন্য সময় প্রার্থনা করেন।

আদালতে বিএনপি ও জামায়াত নেতাদের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসে। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, অ্যাডভোকেট শিশির মো. মনির, মাসুদ রানা প্রমুখ।

অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তার সঙ্গে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মমতাজ উদ্দিন ফকির ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।

বিভিন্ন মামলায় আদালত থেকে জামিন হওয়ার পরও কারাফটকে বিএনপি ও জামায়াতের নেতাদের গ্রেফতারের বিরুদ্ধে আবেদন করা হলে হাইকোর্টে তাদের সুনির্দিষ্ট মামলা ছাড়া গ্রেফতার ও হয়রানি না করার নির্দেশ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *